বিশেষ প্রতিনিধি, প্রাণের দেশ :

বিএনপি চেয়ারপারসন কারাবন্দি বেগম খালেদা জিয়ার বিষয়ে ‘নো কম্প্রোমাইজ’ বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার রাতে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে এক অনির্ধারিত বৈঠকে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে উদ্দেশ্য করে তিনি এ কথা বলেন। বৈঠকে উপস্থিত একাধিক নেতা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বৈঠকে উপস্থিত নেতাদের ভাষ্যমতে, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে উদ্দেশ্য করে দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা বলেছেন, কোনো উল্টাপাল্টা কথাবার্তা বলবা না। তার বিষয়ে নো কম্প্রোমাইজ।

এ সময় চলমান অভিযান নিয়েও কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, দেশের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার জন্য এই অভিযান চালাতে হবে। এই অভিযানে অভিযুক্তদের কেউ যেন শেল্টার (আশ্রয়) দেয়ার চেষ্টা না করে।

প্রায় সোয়া এক ঘণ্টা বৈঠক শেষে গণভবনের গেটে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের কথা বলেন।

চলমান অভিযানের সঙ্গে সম্পৃক্ত কোনো ব্যক্তির বিষয়ে আলোচনা হয়েছে কি না- এ বিষয়ে তিনি বলেন, কারও নাম উল্লেখ করে আলোচনা হয় নাই তবে, চলমান অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী।

আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- দলটির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, মো. আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী প্রমুখ।

মোঃ রবিউল আউয়াল রবি, ময়মনসিংহ ব্যুরো:
ময়মনসিংহ সদরের আলালপুরে বাস, সিএনজি অটোর ত্রিমুখী সংঘর্ষে ১ জন নিহত ও ৬জন আহত হয়েছে।
আহতদের উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
সকালে জেলার ময়মনসিংহ -তারাকান্দা মহাসড়কের আলালপুরে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে প্রাণের দেশ’কে  পুলিশ জানান, তারাকান্দাগামী একটি বাস মহুয়া এন্টারপ্রাইজ ঢাকা মেট্রো-জ -১১০৯১৬, আলালপুরে পৌঁছালে বিপরীত দিকে থেকে আসা একটি সিএনজি ,অটোর সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।
এতে ঘটনাস্থলেই কোদালধর এলাকার আইনুল হক নামে এক যাত্রীর  নিহত হন এবং গুরুতর আহত হন ৬ জন।
এসময় মহাসড়কের যান চলাচল সাময়িকভাবে বন্ধ হয়ে যায়।
খবর পেয়ে ময়মনসিংহ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের কর্মীরা এবং পুলিশ এসে স্থানীয়দের সহায়তায় আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়। তাৎক্ষণিকভাবে আহতদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি ।
পিডি/এমএ

প্রাণের দেশ ডেস্ক রিপোর্ট :

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফরে দু’দেশের মধ্যে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন ও তিস্তার পানি বণ্টন বিষয়ে আলোচনার পাশাপাশি ৮টি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর এই সফর শুরু হবে। খবর বাসস’র।

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মধ্যে শনিবার দ্বিপক্ষীয় বৈঠকের পর যোগাযোগ, সংস্কৃতি, কারিগরি সহযোগিতা, বাণিজ্য ও বিনিয়োগ খাতে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হতে পারে।

ভারতে বাংলাদেশের হাইকমিশনার সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী তার কার্যালয়ে বাসসকে একথা বলেন।

তিনি বলেন, দুই প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে ৫ অক্টোবর বৈঠকের পর মূলতঃ যোগাযোগ, সংস্কৃতি, কারিগরি সহযোগিতা, বাণিজ্য ও বিনিয়োগ খাতে এ পর্যন্ত ৭ থেকে ৮টি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের বিষয় নিশ্চিত হয়েছে। তবে, এ সংখ্যা ১০টিতেও উন্নীত হতে পারে।হাইকমিশনার বলেন, তিস্তা ও রোহিঙ্গা ইস্যুসহ সকল বিষয়ে দুই প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে বিস্তারিত আলোচনা হবে। তবে, এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের আগে আমরা কোন ধারণা পোষণ করতে পারছি না।

ভারতের ন্যাশনাল রেজিস্ট্রার অব সিটিজেন (এনআরসি) বিষয়ে প্রশ্নের জবাবে জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশনের ফাঁকে শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদির মধ্যে বৈঠকে এনআরসি প্রশ্নে বাংলাদেশকে উদ্বিগ্ন না হতে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য উল্লেখ করে মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, এটি তাদের ইস্যু, তাদেরকেই এটি হ্যান্ডেল করতে দিন।

এনআরসি নিয়ে আমাদের উদ্বিগ্ন হওয়ার প্রয়োজন নেই।হাইকমিশনার বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ওয়ার্ল্ড ইকোনোমিক ফোরাম (ডাব্লিউইএফ)-এর ভারতীয় শাখা ইন্ডিয়ান ইকোনোমিক ফোরাম-২০১৯-এ যোগ দিতে ৩ অক্টোবর সকালে ৪ দিনের সফরে নয়াদিল্লী পৌঁছবেন।ওই ফোরামে প্রধানমন্ত্রী বিশেষ করে নিম্ন আয়ের দেশ থেকে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীতসহ বাংলাদেশের সাম্প্রতিক সময়ের অগ্রগতি ও সমৃদ্ধি তুলে ধরবেন। এর পাশাপাশি তিনি বাংলাদেশের বর্তমান জিডিপি প্রবৃদ্ধি এবং বিগত কয়েক বছরে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে তাঁর সরকারের ব্যাপক সাফল্যের কথাও উল্লেখ করবেন।তিনি ভারতের বড় বড় বিনিয়োগকারীদের বাংলাদেশে আরও বিনিয়োগেরও আহ্বান জানাবেন।

এছাড়া তিনি ভারতের তিনটি চেম্বার অব কমার্স এন্ড এক্সচেঞ্জ নেতৃবৃন্দের সঙ্গে শুক্রবার যৌথভাবে বৈঠক ও মতবিনিময় করবেন।ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে শনিবার সকাল সাড়ে ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ঐতিহাসিক হায়দ্রাবাদ হাউসে। পরে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সৌজন্যে আয়োজিত ভারতের প্রধানমন্ত্রীর মধ্যাহ্নভোজে যোগ দেবেন শেখ হাসিনা।বিকেলে শেখ হাসিনা ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন।

এদিকে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এস জয়শঙ্কর সকালে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন।এছাড়া সফররত সিঙ্গাপুরের ডেপুটি প্রধানমন্ত্রী হেং সুয়ে কেট শুক্রবার বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন। তিনি রোববার ভারতের কংগ্রেস পার্টির প্রধান সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গেও বৈঠক করবেন।

শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার বাংলাদেশে হাইকমিশন আয়োজিত সংবর্ধনা ও নৈশভোজে যোগ দেবেন।এছাড়া জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন ও কর্ম ভিত্তিক ফিচার ফিল্ম তৈরির বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনার জন্য ভারতের প্রখ্যাত চিত্র পরিচালক শ্যাম বেনেগাল রোববার বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন।

বাংলাদেশ-ভারত যৌথ প্রযোজিত বঙ্গবন্ধুর উপর নির্মিত চলচ্চিত্র মুজিব বর্ষ ২০২০-২১ শেষ হওয়ার আগে মুক্তি পাবে।ভারত সফর শেষে প্রধানমন্ত্রী রোববার বিকেলে দেশের উদ্দেশ্যে নয়াদিল্লী ত্যাগ করবেন।

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি, প্রাণের দেশ :

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে নগদ এক কোটি ২৫ লাখ টাকা ও দুই হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ জামাল হোসেন মৃধা (৪৫) নামে এক ব্যক্তি ও তার দুই সহযোগীকে আটক করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ।

মঙ্গলবার ১ অক্টোবর দিবাগত রাতে উপজেলার তারাবো পৌরসভার রসুলপুর এলাকার একটি বাড়ি থেকে তাদের আটক করা হয়। জামাল হোসেনের দুই সহযোগী হলেন, মোস্তফা (৩৫) ও মানিক (৩৪)। নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ এ তথ্য জানান।
জেলা গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মিজানুর রহমান জানান, গোপনে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের কাছে খবর আসে, জামাল হোসেন মৃধার বাড়িতে এক লাখ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটের একটি চালান প্রবেশ করবে। এর ভিত্তিতে বিকাল থেকে ওই এলাকায় নজরদারি বাড়ায় পুলিশ।

মঙ্গলবার মধ্যরাতে জামাল হোসেনের রসুলপুর এলাকার চারতলা বাড়ির তৃতীয় তলার ফ্ল্যাটে তল্লাশি চালানো হয়। এসময় একটি ট্রাঙ্কে এক কোটি ও আমলমারিতে ২৫ লাখ টাকা পাওয়া যায়। এছাড়া বাসার নিচ তলার ফ্ল্যাটের অফিস থেকে দুই হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ জানান, জামাল হোসেন মৃধা নিজেকে তিনটি কয়েল ফ্যাক্টরির মলিক দাবি করেছে, কিন্তু সে ফ্যাক্টরির অনুমোতিপত্র বা কোনও কাগজপত্র দেখাতে পারেনি। জব্দ করা টাকার বৈধ কোনও উৎস দেখাতে পারেনি। ধারণা করা হচ্ছে, টাকাগুলো হুন্ডির মাধ্যেমে বিদেশে পাচার করার জন্য রাখা হয়েছিল। কয়েল ব্যবসার আড়ালে সে দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসা করে আসছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

হারুন অর রশীদ আরও জানান, আটক ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে বিদেশে টাকা পাচারের অভিযোগে মানি লন্ডারিং আইনে ও মাদকদব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে আলাদা দুটি মামলা দায়ের করা হবে। পাশাপাশি আবাসিক এলাকায় কয়েল ফ্যাক্টরি নির্মাণ করে পরিবেশের ক্ষতিসাধান এবং পরিবেশ ছাড়পত্র না থাকায় পরিবেশ আইনে আরও একটি মামলা দায়ের করা হবে। তিনি বলেন, ‘জামাল হোসেনকে রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। বাড়িতে এত টাকা কী কারণে রেখেছিল, ইয়াবা ব্যবসা করে সে কত টাকার মালিক হয়েছে এবং তার সঙ্গে কোনও জঙ্গি সংগঠনের সশ্লিষ্টতা আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হবে।’

স্পোর্টস রিপোর্টার, প্রাণের দেশ : 

স্পোর্টিং (ক্রীড়া) ক্লাবের নিবন্ধনসহ ক্লাবগুলোতে সব ধরনের নজরদারি প্রয়োজন। গত কয়েক দিন স্পোর্টিং ক্লাবগুলোতে ক্যাসিনো পরিচালনার অভিযোগের প্রমাণ পাওয়ায় এসব ক্লাবকে জবাবদিহিতার আওতায় রাখা জরুরি। তাই এসব ক্লাব যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের অধীনেই থাকা উচিত বলে মনে করেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল। যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, ক্রীড়া ক্লাবগুলোতে ক্যাসিনো ব্যবসা থাকা দুঃখজনক। ক্লাবগুলো ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের অধিভুক্ত নয় বলে তাদের ওপর নজরদারি করার সুযোগ নেই। রাজধানীর বেশিরভাগ ক্লাব লিমিটেড কোম্পানি হওয়ায় এগুলোর ওপরে নজরদারি করার এখতিয়ার নেই যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের। তবে সময় এসেছে আইন পরিবর্তনের।

আগামীতে যাতে তাদের জবাবদিহিতার আওতায় আনা যায় সেজন্য আইন পরিবর্তন করে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে বলে জানিয়েছেন প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল। তিনি বলেন, যারা ক্যাসিনো ব্যবসায় জড়িত তাদের আইনের আওতায় এনে সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। কারণ, ক্রীড়া ক্লাবগুলো ক্যাসিনো ব্যবসায় জড়িত হওয়ায় ক্রীড়াঙ্গনের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছে।

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী পালন উপলক্ষে মঙ্গলবার ১ অক্টোবর বিভিন্ন ফেডারেশনের প্রতিনিধিদের সঙ্গে পর্যালোচনা সভা করেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী। ওই সভায় আটটি ইভেন্ট অনুষ্ঠিত হওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। এর মধ্যে ৩৯টি আন্তর্জাতিক এবং বাকিগুলো জাতীয়। এজন্য বাজেট ধরা হয়েছে ৩০৬ কোটি টাকা। রাষ্ট্রীয় তহবিল ও স্পন্সরদের সমন্বয়ে এই কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হবে।

প্রাণের দেশ ডেস্ক :

ভারী বৃষ্টি ও ভারত থেকে আসার পানির কারণে পদ্মাসহ বেশ কয়েকটি নদীর পানি বেড়ে বন্যা দেখা দিয়েছে। দেশের উত্তর ও মধ্যাঞ্চলের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।

বেশ কয়েকটি জেলায় আশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছে। কিছু স্কুল বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। ফসলের ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া গেছে।

গঙ্গায় পানির চাপ বেড়ে যাওয়ায় সোমবার (৩০ সেপ্টেম্বর) ফারাক্কার ১০৯টি গেট খুলে দিয়েছে ভারত। দেশটির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, বিহার, পাটনা ও মালদায় বন্যার কারণে এসব গেট খুলে দেওয়া হয়েছে। তবে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, প্রতিবছর জুলাই থেকে অক্টোবর পর্যন্ত ফারাক্কা বাঁধের গেটগুলো খুলে রাখা হয়। ফলে এটা নতুন কোনও বিষয় নয়। গেট খোলা রাখার কারণে বন্যার শঙ্কা নেই বলে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে আশ্বস্ত করা হয়েছে।

তবে এরইমধ্যে রাজশাহী, সিরাজগঞ্জ, রাজবাড়ি, ফরিদপুর,  পাবনা, মুন্সীগঞ্জ, শরীয়তপুর, মাদারীপুর ও মানিকগঞ্জসহ আশপাশের এলাকার নদী তীরবর্তী অঞ্চল প্লাবিত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

এ বিষয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ডের বন্যা-পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী  মো. আরিফুজ্জামান ভুইয়া বলেন, ‘এটি স্বাভাবিক বন্যা পরিস্থিতি। কয়েকদিন আগে বিহারের দিকে উজানে ভারী বৃষ্টি হয়েছে। সেই বৃষ্টির প্রভাবেই এখন এই বন্যা পরিস্থিতির শঙ্কা তৈরি হয়েছে। এটি খুব সাময়িক। বেশি দিন থাকবে না। এক সপ্তাহের মতো স্থায়ী হবে। তারপর এটি স্বাভাবিক হয়ে যাবে।’