শিরোনাম

এম আর মাহমুদ : রূপগঞ্জে সামাজিক সংগঠন এফএনএফ ফাউন্ডেশন কাঞ্চন শাখার উদ্যাগে প্রায় ২ হাজার দুস্থ ও অসহায় রোগীকে বিনামূল্যে স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করা হয়েছে।

বুধবার (৩০ অক্টোবর) উপজেলার কাঞ্চন পৌরসভার দক্ষিণ বাজার ছমির সুপার মার্কেট সংলগ্ন মাঠে স্থানীয় ডিকেএমসি হসপিটাল লিঃ, কামাল দেওয়ান ফার্মেসী ও মাসুদ অপটিকের সহযোগিতায় এ চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়।

সংগঠনের সভাপতি এ হালিমের সভাপতিত্বে কর্মসূচির উদ্বোধন করেন সমাজ সেবক মনিরুজ্জামান ভূইয়া। বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা উপলক্ষে সংক্ষিপ্ত আলোচনায় প্রধানঅতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কাঞ্চন পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব রফিকুল ইসলাম রফিক।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, কাউন্সিলর মফিকুল ইসলাম খান, ভোলাব তদন্ত কেন্দ্রর ইনচার্জ শফিকুল ইসলাম, ইউপি সদস্য আব্দুল্লাহ আল মামুন দোলন, ডিকেএমসি হসপিটালের নির্বাহী পরিচালক নজরুল ইসলাম, সংগঠনের  সাধারণ সম্পাদক আওলাদ মাহবুব, সাবেক সভাপতি আমিনুল ইসলাম বাবু, মাছুদ চৌধুরী, এড. ফাইজুর রহমানবাবলু, ফরিদ হোসেন, আব্দুর রহমান, জামাল হোসেন, সোহেলমিয়া, মোস্তফা মোল্লা, মোক্তার হোসেন, সোহেল মাহমুদ, মাসুম মিয়া, শাকিলআহমেদ, তাপস সুত্রধর, প্লাবন দেবনাথ, সাইদুর রহমান, আলামীন অপু, সজিব মিয়া, সাইফুল ইসলাম, এইচএম হালিম প্রমুখ।

ফ্রি চিকিৎসা ক্যাম্পে বিভিন্ন বিষয়ে অভিজ্ঞ ১৬ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দিনব্যাপী স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করেন।এছাড়া বিনামূল্যে ডায়াবেটিকস ও রক্তের গ্রুপ নির্নয় করা হয়।

 এম আর মাহমুদ :রূপগঞ্জে দিঘীবরাবো আইডিয়াল হাই স্কুলের জেএসসি, পিইসি পরীক্ষার্থী জন্য দোয়া ও কৃতী শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে।বুধবার (৩০ অক্টোবর) দুপুরে উপজেলার মাঠে এ দোয়া ও সংবর্ধনা প্রদান করা হয়।

স্কুলের সভাপতি রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, লেখক, কলামিস্ট, গবেষক ও রূপগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি লায়ন মীর আব্দুল আলীম।

 

উপস্থিত ছিলেন হাজী এখলাছ উদ্দিন ভুইয়া স্কুল এন্ড কলেজের উপদেষ্টা শহিদুল্লাহ ভুইয়া, দিঘীবরাবো আইডিয়াল হাই স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক মোহাম্মদ ইউনুছ, হাজী মোয়াজ্জেম আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আফতাব উদ্দিন চৌধুরী, কাজী মহিউদ্দিন মডেল হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক এনামুল কবীর, জিএম সহিদ, শফিকুল আলম ভুইয়া, এস এম শাহদাত, আরিফ হাসান আরব প্রমুখ।

মাহমুদ রাসেল  :   রাজধানীর রুপনগর আবাসিক এলাকায় বেলুনে গ্যাস ভরার সময় সিলিন্ডার বিস্ফোরণে নারী ও শিশুসহ পাঁচজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন আরও অন্তত ১০-১৫ জন। আহতদের উদ্ধার করে  সোহরাওয়ার্দী ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। আজ বুধবার বিকেল ৩টার দিকে ওই আবাসিক এলাকার ১১ নম্বর রোডে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলো- রমজান (৮), নুপুর (৭), শাহীন (৯) ও ফারহানা (৬)। বাকি অজ্ঞাত (৭) একজনের নাম ও পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

এছাড়া জান্নাত (২৫), জুবায়ের (৮), সাদেকুর (১০), নাহিদ (৭), জামিল (১৪), মরিয়ম (৮/৯), অজ্ঞাতপরিচয়ে (৩০) একজনসহ মোট ১৫ জন আহত হয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। আহতদের মধ্যে ১২ জন শিশু, একজন রিকশাচালক ও একজন নারী রয়েছেন। তাদের মধ্যে ৪ শিশুর অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে।

দুর্ঘটনায় হতাহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রূপনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম আজাদ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রূপনগরের ১১ নম্বর সড়কে বেলুন বিক্রি করার একটি ভ্যানে সিলিন্ডার বিস্ফোরণ ঘটে। সিলিন্ডার থেকে বেলুনে গ্যাস ভরা হতো। বিস্ফোরণে ঘটনাস্থলেই ভ্যানের পাশে থাকা কয়েকজন শিশুর লাশ ছিন্ন-ভিন্ন হয়ে যায়।

মাহমুদ রাসেল :   চলমান দুর্নীতিবিরোধী অভিযানে আবারও নড়েচড়ে বসেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এ অভিযানের অংশ হিসেবে জব্দ করা ৪০০ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের আর্থিক লেনদেনের হিসাব চেয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। বুধবার বাংলাদেশ ফিন্যান্সিয়াল ইন্টিলিজেন্স ইউনিটের (বিএফআইইউ) কাছে দুদকের পক্ষ থেকে এ সংক্রান্ত একটি চিঠি পাঠানো হয়েছে।
দুদকের মহাপরিচালক (বিশেষ তদন্ত) সাঈদ মাহবুব খানের সই করা চিঠিতে বলা হয়েছে, চলমান দুর্নীতিবিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে দুর্নীতি দমন কমিশনে বিভিন্ন ব্যক্তির বিরুদ্ধে অনিয়ম, দুর্নীতি, সরকারি অর্থ আত্মসাৎ ও অবৈধ সম্পদ অর্জন সংক্রান্ত অনুসন্ধান/মামলা চলমান রয়েছে।
বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত তথ্যসূত্রে জানা যায়, বিএফআইইউ চলমান দুর্নীতিবিরোধী অভিযানের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত চার শতাধিক ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের ব্যাংক হিসাব জব্দ করেছে। দুদক চলমান অনুসন্ধান ও মামলাসমূহের কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য জব্দ করা হিসাবসমূহের বিবরণীসহ প্রকৃত অর্থ লেনদেন সংক্রান্ত তথ্য পর্যালোচনা করা আবশ্যক।
চিঠিতে আরও বলা হয়, সুষ্ঠু অনুসন্ধান ও তদন্তের স্বার্থে এখন পর্যন্ত জব্দ করা চার শতাধিক ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠানের হিসাব বিবরণী ও প্রকৃত আর্থিক লেনদেনের তথ্য/রেকর্ডপত্র জরুরি ভিত্তিতে পাঠিয়ে অনুসন্ধান ও তদন্তকাজে সহযোগিতা করার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করা হয়েছে।
দুদক ও বিএফআইইউ সূত্রে জানা যায়, এরই মধ্যে ভোলা-৩ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন, চট্টগ্রাম-১২ আসনের এমপি ও জাতীয় সংসদের হুইপ সামশুল হক চৌধুরী, যুবলীগের অব্যাহতি পাওয়া চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী, স্বেচ্ছাসেবক লীগের অব্যাহতি হওয়া সভাপতি মোল্লা মো. আবু কাওসার ও সাধারণ সম্পাদক পংকজ দেবনাথ, যুবলীগ ঢাকা দক্ষিণ মহানগর শাখার বহিষ্কৃত সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাট, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের বহিষ্কৃত কাউন্সিলর ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক ও বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মমিনুল হক সাঈদ, ঢাকা দক্ষিণ সিটির কাউন্সিলর কাউন্সিলর হাবিবুর রহমান মিজান ওরফে পাগলা মিজান, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের যুবলীগ বহিষ্কৃত সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পরিচালক ও মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক লোকমান হোসেন ভূঁইয়া, কলাবাগান ক্রীড়াচক্রের সভাপতি ও কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় নেতা সফিকুল আলম ফিরোজ, যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির বহিষ্কৃত দপ্তর সম্পাদক কাজী আনিছুর রহমান, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান বকুল, গেন্ডারিয়া থানা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এনামুল হক এনু ও সহ-সম্পাদক রুপন ভূঁইয়া, যুবলীগ নেতা ও ঠিকাদার জি কে শামীম, গণপূর্ত অধিদপ্তরের সাবেক প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম ও বর্তমান অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী আবদুল হাইয়ের হিসাব জব্দ করেছে বিএফআইইউ। পাশাপাশি অভিযুক্তদের পরিবারের সদস্যদেরও ব্যাংক হিসাব জব্দ করেছে সংস্থাটি।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে পরিচালিত শুদ্ধি অভিযানের অংশ হিসেবে গত ১৮ সেপ্টেম্বর থেকে বিভিন্ন ক্লাবে অভিযান চালায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। এসব ক্লাবে অবৈধ ক্যাসিনো ব্যবসার সন্ধান পাওয়া যায়। এর জের ধরে এ পর্যন্ত গ্রেফতার হয়েছেন যুবলীগের বেশ কয়েকজন শীর্ষ নেতা। ক্যাসিনো পরিচালনায় জড়িতদের সম্পদের অনুসন্ধানে অভিযান পরিচালনার ১২ দিন পর ৩০ সেপ্টেম্বর অনুসন্ধান দল গঠন করে দুদক।
দুদকের মহাপরিচালক (বিশেষ তদন্ত) সাঈদ মাহবুব খানকে তদারক কর্মকর্তা ও পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেনকে প্রধান করে ছয় সদস্যের অনুসন্ধান দল গঠন করা হয়। এর অন্যান্য সদস্যরা হলেন- দুদকের উপ-পরিচালক মো. জাহাঙ্গীর আলম ও সালাউদ্দিন আহম্মেদ, সহকারী পরিচালক নেয়ামুল আহসান গাজী ও মামুনুর রশিদ চৌধুরী।

প্রাণেরদেশ ডেস্ক :  ক্রিকেটের আন্তর্জাতিক নিয়ন্ত্রণ সংস্থা আইসিসি বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানকে যে নিষেধাজ্ঞা দিতে যাচ্ছে সেটার বিষয়ে বিসিবি বলেছে তারা সাকিবের পাশে থাকবে। এ বিষয়ে আমাদের আসলে বেশিকিছু করার নেই। মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে সম্প্রতি আজারবাইজান সফর নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, একটা ভুল সে করেছে এটা ঠিক। বিসিবি বলেছে তার পাশে তারা থাকবে। খুব বেশিকিছু যে করণীয় আছে সেটা কিন্তু নয়। ১২০টি উন্নয়নশীল দেশের ন্যাম সম্মেলনে যোগ দিতে ২৪ থেকে ২৭ অক্টোবর পর্যন্ত আজারবাইজান সফর করেন প্রধানমন্ত্রী। আজারবাইজানের রাজধানী বাকুর বাকু ‘কংগ্রেস সেন্টার’-এ ২৫ ও ২৬ অক্টোবর দুই দিনব্যাপী এ ন্যাম সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

অন্য সদস্য দেশগুলোর সরকার ও রাষ্ট্র প্রধানদের সঙ্গে বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রী ন্যাম সম্মেলনে যোগ দেন। পরে প্রধানমন্ত্রী কেন্দ্রের লাঞ্চন হলে পূর্ণাঙ্গ অধিবেশনে প্রতিনিধিদলের প্রধানদের জন্য দেয়া ওয়ার্কিং লাঞ্চন-এ যোগ দেন।

পরে তিনি বাকু কংগ্রেস সেন্টারে সমসাময়িক বিশ্বের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সমন্বিত ও পর্যাপ্ত পদক্ষেপ নিশ্চিতে ‘বান্দুং নীতিমালা’ সমুন্নত রাখা বিষয়ে এক সাধারণ আলোচনায় বক্তব্য রাখেন। সন্ধ্যায় তিনি হায়দার আলিয়েভ সেন্টারে আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভের দেয়া সরকারি সংবর্ধনায় যোগ দেন। ২৬ অক্টোবর সকালে শেখ হাসিনা বাকু কংগ্রেস সেন্টারের সাধারণ বিতর্কে অংশ নেন। পরে, বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রী আজারবাইজানের শহীদদের স্মৃতির সম্মানে নির্মিত স্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

তিনি হিলটন বাকুতে একই সঙ্গে আজারবাইজানের দূত হিসেবে দায়িত্বপ্রাপ্ত তুরস্কে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতের দেয়া নৈশভোজে অংশ নেন। ন্যাম সম্মেলনের ফাঁকে প্রধানমন্ত্রী ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি, মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ড. মাহাথির মোহাম্মদ, আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিইয়েভ, নেপালের প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা ওলি, আলজেরিয়ার ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট আবদেলকাদের বেনসালাহ্ ও ফিলিস্তিনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী রিয়াদ আল-মালিকীসহ বিভিন্ন রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।
প্রবাসী বাংলাদেশিরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফরকালীন আবাসস্থল হোটেল হিলটন বাকুতে গিয়ে তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। তার সফরকালে বাংলাদেশ ও আজারবাইজানের মধ্যে একটি সাংস্কৃতিক বিনিময় চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং আজারবাইজান প্রেসিডেন্ট ইলহাম এলিয়েভের উপস্থিতিতে চুক্তিটি স্বাক্ষর হয়।

প্রাণেরদেশ :   বাংলাদেশের আকাশে ১৪৪১ হিজরি সনের পবিত্র রবিউল আউয়াল মাসের চাঁদ দেখা গে‌ছে।  ফলে বুধবার থেকে পবিত্র রবিউল আউয়াল মাস শুরু হ‌চ্ছে। সেই প্রেক্ষিতে, ১০ নভেম্বর সারাদেশে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা) উদযা‌পিত হবে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ইসলামিক ফাউন্ডেশন বায়তুল মোকররম সভাকক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন ধর্মসচিব ও জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সহ-সভাপতি মো আনিছুর রহমান।

সভায় ওয়াকফ প্রশাসক মো শহীদুল ইসলাম, ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মুঃ আঃ হামিদ জমাদ্দার, তথ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মীর মোঃ নজরুল ইসলাম, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের যুগ্মসচিব (প্রশাসন) মোঃ খলিলুর রহমান, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সচিব কাজী নুরুল ইসলাম, বাংলাদেশ টেলিভিশনের পরিচালক (প্রশাসন/অর্থ) মোঃ জহিরুল ইসলাম মিয়া, সিনিয়র উপ প্রধান তথ্য কর্মকর্তা  মোঃ জসীম উদ্দিন, ঢাকা জেলার এডিসি (জেনারেল) মোঃ শাহিদুজ্জামান, বাংলাদেশ মহাকাশ গবেষণা ও দূর অনুধাবন প্রতিষ্ঠানের মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা শাহ মোঃ মিজানুর রহমান, বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোঃ আবদুর রহমান, ঢাকা আলিয়া মাদ্রাসার সহকারী অধ্যাপক মোঃ হারুন অর রশিদ,বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ মিজানুর রহমান, চকবাজার শাহী জামে মসজিদের খতীব মাওলানা শেখ নাঈম রেজওয়ান ও লালবাগ শাহী জামে মসজিদের খতিব মুফতি মুহাম্মদ নেয়ামতুল্লাহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।সভায় ১৪৪১ হিজরি সালের পবিত্র রবিউল আউয়াল মাসের চাঁদ দেখা সম্পর্কে সকল জেলা প্রশাসন, ইসলামিক ফাউন্ডেশন-এর প্রধান কার্যালয়, বিভাগীয় ও জেলা কার্যালয়সমূহ, বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর এবং মহাকাশ গবেষণা ও দূর অনুধাবন প্রতিষ্ঠান হতে প্রাপ্ত তথ্য নিয়ে পর্যালোচনা করে দেখা যায় যে,  ২৯ সফর ১৪৪১ হিজরি, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশের আকাশে পবিত্র রবিউল আউয়াল মাসের চাঁদ দেখার সংবাদ পাওয়া গে‌ছে।

মোঃ রবিউল আউয়াল রবি, ময়মনসিংহ : গ্রামের অবহেলিত ছেলে-মেয়েদের জন্য যখন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের স্বল্পতা দেখা দেয়, দু-একটা স্কুল থাকলেও দূরত্বের কারণে ছেলেমেয়েরা যেতে চায় না, তখন এই অবস্থা দেখে আমি চিন্তা করি, গ্রামের জন্য একটা স্কুল থাকলে কতোই না ভালো হতো! তখন থেকেই লেগে পড়ি স্কুল প্রতিষ্ঠার কাজে আর এই স্কুল প্রতিষ্ঠা করতে গিয়ে আমার সব ধন-সম্পত্তি শেষ করেছি।

” -এভাবেই বলছিলেন ত্রিশালের কানিহারী ইউনিয়নের বালিদিয়া গ্রামের মোঃ আব্দুস সালাম (মাস্টার) বয়সের ভারে একটু নুয়ে পড়লেও গুণী এই শিক্ষকের দেহের মধ্যে রয়েছে তারুণ্যের জ্বলন্ত শিখা আর অফুরন্ত সাহস। অসম্ভব বলতে কোন কিছুই যেন তিনি মানতে নারাজ তাইতো, ১৯৭৫ সাল থেকেই বিনা-বেতনে গ্রামের অবহেলিত ছেলেমেয়েদের জন্য শিক্ষাদান শুরু করেন। ১৯৮২ সালে সুদীর্ঘ চেষ্টা, শ্রম ও নিজস্ব অর্থের বিনিময়ে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের আওতায় স্কুলটি রেজিস্ট্রি করান ২৫২ নং (৫)। নাম দেন বালিদিয়া কচিকাঁচা রেজিঃ প্রাথমিক বিদ্যালয়।

অতঃপর ২০১০-২০১১ মেয়াদে প্রাথমিক বিদ্যালয় যখন সরকারিকরণের আওতায় পড়ে, তার অল্প কিছুদিন আগে তিনি অবসরে চলে যান। অল্পের জন্য সরকারি সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত হলেও তার মধ্যে নেই কোন আফসোস।

সালাম সাহেবের বড় মেয়ে নাজরাতুন নাইম শিলা (সহ:শিক্ষক সানফ্লাওয়ার আইডিয়াল স্কুল ময়মনসিংহ) জানান বাবা জীবনের বেশিরভাগ সময়টাই কাটিয়েছেন স্কুল ,মাদ্রাসা বা সামাজিক উন্নয়নমূলক কাজে যার জন্য আমাদের প্রয়োজন বা দেখবাল করার সুযোগটা বেশি হয়নি তারপরও আমি বাবার আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে নিজেকে শিক্ষকতা পেশায় নিয়োজিত করি।

বাবা সমাজের মানুষদের দেখিয়ে দিয়েছেন, প্রতিষ্ঠান করতে জনপ্রতিনিধি বা ধনাঢ্য হতে হয় না, তার জন্য প্রয়োজন উচ্চ মনোবল, সৎ সাহস ও দীর্ঘ প্রয়াস।”।বর্তমানে বাবা কিডনীসহ নানা রোগে আক্রান্ত সকলেই উনার জন্য দোয়া করবেন ।

বালিদিয়া কচিকাঁচা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বর্তমান প্রধান শিক্ষক মুহিত বাবু জানান, “সালাম স্যার আমাদের এলাকার গর্ব। তিনি এই স্কুল প্রতিষ্ঠা করতে গিয়ে অনেক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। বিনিময়ে কিছু পাবেন না জানি কিন্তু তার এই সুনাম সারা জীবন থেকে যাবে।
এলাকা সূত্রে জানা যায়, ৭৫ বছর বয়সী আব্দুস সালাম মাস্টার বর্তমানে বালিদিয়া কচিকাঁচা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি আশাবাদী “স্কুলের পাশেই একটা গ্রন্থাগার স্থাপন করবেন, যদিও প্রয়োজনীয় টাকার অভাবে তা সম্ভব হচ্ছে না।”

প্রাণেরদেশ ডেস্ক:   পাকিস্তানের সিন্ধ প্রদেশের ছোট্ট শহর রাতোদেরোর গত ছয় মাসে অন্তত ৯০০ শিশু এইচআইভি বা এইডসে পজিটিভ প্রমাণিত হয়েছে। অল্পদিনে এত শিশুর এই মরণব্যাধিতে আক্রান্ত হওয়ার নেপথে চিকিৎসকদের গাফিলতি। মার্কিন দৈনিক নিউইয়র্ক টাইমসে এ নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, গত এপ্রিলে এই মরণব্যাধি শহরটিতে ছড়িয়ে পড়ার পর মূলত শিশুদের আক্রান্ত হওয়ার সংখ্যা আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছেই। প্রাথমিকভাবে অনুসন্ধান করে স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা বলছেন, শহরটিতে মরণব্যাধি এইডস ছড়িয়ে পড়ার জন্য শুধু একজন শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ দায়ী।

অভিযুক্ত ওই শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ নাকি একই সিরিঞ্জ দিয়ে একাধিক শিশুকে ইঞ্জেকশন দিতেন। গত এপ্রিলের পর থেকে এখন পর্যন্ত প্রায় ১ হাজার ১০০ জন এইডসে আক্রান্ত হয়েছেন, যাদের মধ্যে ৯০০ জনের বয়স ১২ বছরের কম। স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা বলছেন, এই সংখ্যাটা প্রকৃতপক্ষে আরও বেশি।

স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা ওই শহরে গিয়ে স্বচক্ষে ভূ্ক্তভোগীদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে ঘটনাগুলো বিশ্লেষণ করে জানতে পেরেছেন এইডসে আক্রান্ত এসব শিশুর বেশিরভাগ ওই মুজাফ্ফর নামের ওই শিশুরোগ বিশেষজ্ঞের কাছে চিকিৎসা নিয়েছেন। যিনি ওখানকার গরীব পরিবারগুলোর একমাত্র চিকিৎসক।

স্থানীয় সাংবাদিক গুলবাহার শেখ শহরটিতে মহামারি আকার ধারণ করা ভয়াবহ এই বিষয় নিয়ে সর্বপ্রথম প্রতিবেদন তৈরি প্রকাশ করেন। নিউইয়র্ক টাইমসকে তিনি বলেন, ‘পরিস্থিতি খুবই ধ্বংসাত্মক।’ সবচেয়ে দুঃখজনক হলো ওই সাংবাদিকের নিজের ছেলেও এই মরণব্যাধিতে আক্রান্ত।

স্থানীয় বাসিন্দা ইমতিয়াজ জালবানি বলেন, ‘আমার ছয় সন্তানের প্রত্যেকের চিকিৎসা করান মুজাফ্ফর নামের অভিযুক্ত ওই চিকিৎসক। ছেলে-মেয়েদের ওষুধরে খরচের জন্য স্ত্রীসহ না খেয়েও থাকতে হয়। কিন্ত তিনি আমাদের বলেন, তোমরা যদি আমার চিকিৎসা না চাও, তাহলে অন্য কোনো ডাক্তারের কাছ যাও।’

দিনমজুর ইমতিয়াজের ছয় সন্তানের চারটি এইচআইভিতে আক্রান্ত। আর সেই চারজনের মধ্যে দুজন ইতিমধ্যে মারাও গেছে। শেষ পর্যন্ত মুজাফ্ফর নামের ওই ডাক্তারকে গ্রেফতার করে তার বিরুদ্ধে দায়িত্বে অবহেলা, নরহত্যা ও অনিচ্ছাকৃত ক্ষতির অভিযোগ আনা হয়েছে।

তবে এতকিছুর পরও ডাক্তার মুজাফ্ফর নিজেক নির্দোষ বলে দাবি করে বলছেন, তিনি কখনো কোনো ইঞ্জেকশন পুনরায় আরেকজনের জন্য ব্যবহার করেননি। স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বলছেন, শুধু ডাক্তার মুজাফ্ফরের কারণে এইডস মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়েনি আরও কিছু ডাক্তারও এর জন্য দায়ী।

স্বাস্থ্য দফতরের কর্মকর্তাদের একটি দলকে ওই শহর পরিদর্শন করে মাঠ পর্যায়ের তথ্য সংগ্রহ করার কাজে পাঠানো হয়। তারা তাদের প্রতিবেদনে বলছে, শুধু মুজাফ্ফর নয় আরও অনেক চিকিৎসক একই সিরিঞ্জ অনেকবার ব্যবহার করেন।

শুধু ডাক্তাররাই নয় সেখানকার আরও অনেকেই মহামারি এই রোগ বিস্তারের জন্য দায়ী বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা। বেশিরভাগ সেলুনে একই ব্লেড অনেকের শেভ করার কাজে ব্যবহার করেন। রাস্তায় বসা অনেক দন্ত চিকিৎসক এমন কিছু জিনিস ব্যবহার করে যেগুলো জীবাণুমুক্ত নয়।

জাতিসংঘের এইডস বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইডসের দেয়া হিসাব অনুযায়ী, সিন্ধের ছোট্ট শহর রাতোদেরোতে যেমন এইডস রোগীর সংখ্যা বাড়ছে তেমনি গোটা পাকিস্তানের এই সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে।

এইচআইভি ও এইডস বিষয়ক জাতিসংঘের বিশেষ টাস্কফোর্স হিসাব দিয়েছে, গত নয় বছরের মধ্যে পাকিস্তানে এইডস আক্রান্ত মানুষ বেড়ে প্রায় দ্বিগুণ হয়েছে। ২০১০ সালের পর দেশটিতে এখন এইডস আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৬০ হাজার।

প্রাণেরদেশ ডেস্ক রিপোর্ট : সদ্য সমাপ্ত আজারবাইজান সফর নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, আজারবাইজানের বাকুতে অনুষ্ঠিত জোট নিরপেক্ষ সম্মেলন পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘প্রেস কনফারেন্স’ আগামীকাল মঙ্গলবার বিকাল ৪টায় গণভবনে অনুষ্ঠিত হবে।
জোট নিরপেক্ষ আন্দোলনের (ন্যাম) ১৮তম শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিতে বৃহস্পতিবার আজারবাইজান যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। চারদিনের সফর শেষে রোববার সন্ধ্যায় দেশে ফেরেন তিনি। আজারবাইজানের শিক্ষামন্ত্রী জাইহুন আজিজ ওগলু বেরামভ এবং আজারবাইজানের দায়িত্বপ্রাপ্ত তুরস্কে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এম আল্লামা সিদ্দিকী বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে বিদায় জানান।
সফরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাকু কংগ্রেস সেন্টারে ১৮তম ন্যাম সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দেন। এছাড়া তিনি বাকু কংগ্রেস সেন্টারে সমসাময়িক বিশ্বের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সমন্বিত ও পর্যাপ্ত পদক্ষেপ নিশ্চিতে ‘বান্দুং নীতিমালা’ সমুন্নত রাখার বিষয়ে এক সাধারণ আলোচনায় বক্তব্য রাখেন।
শনিবার অন্যান্য ন্যাম নেতৃবৃন্দের সঙ্গে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাকু কংগ্রেস সেন্টারের প্ল্যানারি হলে সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দেন। এরপর প্রধানমন্ত্রী পূর্ণাঙ্গ অধিবেশন, প্রতিনিধিদলের প্রধানদের সঙ্গে ওয়ার্কিং লাঞ্চন ও সম্মেলনের সমাপনী অনুষ্ঠানে যোগ দেন।
কক্সবাজার প্রতিনিধি : ভূমিহীন ও প্রতিবন্ধী এক যুবকের নিকট থেকে ২০ হাজার টাকা ঘুষ গ্রহণের অভিযোগে কক্সবাজারের মহেশখালী উপজেলা ভূমি অফিসের ভারপ্রাপ্ত কানুনগো আব্দুর রহমানকে  হাতে-নাতে গ্রেফতার করেছে দুদক।
সোমবার ২৮ অক্টোবর ২০১৯ বিকাল ৪টায় দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয় চট্টগ্রাম-২ এর উপপরিচালক মুহ:  মাহবুবুল আলম-এর নেতৃত্বে ছয় সদস্যের একটি টিম মহেশখালী উপজেলা ভূমি অফিস থেকে নিজ দপ্তরে বসে ঘুষ গ্রহণকালে ঘুষের টাকাসহ ওই ভূমি অফিসের ভারপ্রাপ্ত কানুনগো আব্দুর রহমানকে গ্রেফতার করে।
স্থানীয় জনৈক ভূমিহীন ও প্রতিবন্ধী ব্যক্তি অভিযোগ করেন, মহেশখালী উপজেলার শাপলাপুর মৌজায় নিজের ভূমিহীন বাবা ও মায়ের নামে ভূমিহীন হিসেবে পাওয়া বন্দোবস্তি প্রাপ্ত জমির নামজারি প্রতিবেদনের জন্য আব্দুর রহমান তার কাছে ২০ হাজার টাকা ঘুষ দাবি করেন। প্রতিবন্ধী এই যুবকের কোনো অনুরোধেই মন গলেনি আব্দুর রহমানের। ঘুষের টাকা না দিলে, প্রতিবেদন দিবেন না বলে সাফ জানিয়ে দেন।
বিষয়টি ঐ প্রতিবন্ধী যুবক লিখিতভাবে দুদক’কে অবহিত করলে-কমিশন অভিযোগ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাকে ফাঁদ মামলা পরিচালনা করে ঘুষ গ্রহণকালে হাতে-নাতে গ্রেফতারের অনুমতি দেয়। সোমবার ঘুষ গ্রহণের নির্ধারিত সময়ের অনেক আগ থেকেই দুদক টিমের সদস্যরা  মহেশখালী উপজেলা ভূমি অফিসের চারিদিকে ওতপেতে থাকেন ।
মহেশখালী উপজেলা ভূমি অফিসের ভারপ্রাপ্ত কানুনগো আব্দুর রহমান যখন এদিন বেলা ৪টায় নিজ দপ্তরে বসে ঘুষের ২০ হাজার টাকা গ্রহণ করছিলেন, ঠিক তখনই দুদক টিমের সদস্যরা তাকে ঘুষের টাকাসহ হাতে-নাতে গ্রেফতার করে। এসময় তার ব্যবহার্য ব্যাগ, ড্রয়ার তল্লাশি করে আরো নগদ প্রায় ১ লক্ষ ৯০ হাজার টাকা উদ্ধার করে দুদক টিম। আসামি এসব টাকারও কোনো বৈধ উৎস জানাতে পারেননি। এসব টাকাও আজকেরই ঘুষের টাকা বলেই সাক্ষ্য পাওয়া যাচ্ছে।
এ বিষয়ে দুদক সজেকা চট্টগ্রাম-২ এর সহকারী পরিচালক মোঃ হুমায়ুন কবীর বাদী হয়ে দুদক সজেকা চট্টগ্রাম-২-এ একটি মামলা দায়ের করেছেন।
এ অভিযানের নেতৃত্ব দিয়েছেন দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয় চট্টগ্রাম-২ এর উপপরিচালক মুহঃ মাহবুবুল আলম।