এ এসআই হাবিবুরের লাখ লাখ টাকার গ্রেফতার বানিজ্য

প্রকাশিত হয়েছে

  নিজস্ব প্রতিবেদক :   নারায়নগঞ্জের রূপগঞ্জে চোলাই মদ ব্যবসায়ী ও বিদেশী মদ বিক্রেতাকে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দিয়েছে রূপগঞ্জ থানার এএসআই হাবিবুর রহমান। বৃহস্পতিবার রাতে পূর্বাচল উপশহরের নীলা মার্কেট এলাকার একটি নির্জন স্থানে অনৈতিক কাজ করার সময় এক কিশোরী ও তিন যুবককে আটকের পর মোটা অংকের টাকা আদায় করে ছেড়ে দেয় এএসআই হাবিবুর রহমান। পূর্বাচল উপশহরে চলছে হাবিবুরের রামরাজত্ব।
সুত্র জানায়, এএসআই হাবিবুর রহমান রহমান গত ৩১ জুলাই রূপগঞ্জ পুর্বাচল উপশহরের নীলা মার্কেট এলাকার পুলিশ চেক পোষ্টের দায়িত্ব পান। এ থেকেই শুরু ঘুষ বানিজ্য। গত ২ আগষ্ট পাতিরা এলাকার সুরুজ মিয়াকে ৬০ লিটার চোলাই মদসহ আটকের পর ৮০ হাজার টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দেয়। গত ৫ জুলাই রূপগঞ্জের শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী রতনের প্রধান সহযোগীকে ৫ বোতল বিদেশী মদসহ আটকের পর ৫৫ হাজার টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দেয়।
গত বৃহস্পতিবার রাতে পূর্বাচল উপশহরের নীলা মার্কেট এলাকার একটি নির্জন স্থানে অনৈতিক কাজ করার সময় রিমি নামে এক কিশোরীসহ তিন যুবককে আটক করে। পরে তাদের পরিবারের লোকজনের সঙ্গে রফাদফা করে ৩৫ হাজার টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দেয়।

এএসআই হাবিবুর রহমান পূর্বাচল পুলিশ ক্যাম্পের দায়িত্ব ভার গ্রহনের পর ঐ এলাকায় মাদক ব্যবসায়ীরা খোলাবাজারের মতো ইয়াবা বিক্রি করছে। পুর্বাচল উপশহরের প্রায় দেড়’শ মাদক স্পট রয়েছে তার নিয়ন্ত্রনে।

এএসআই হাবিবুর রহমান পূর্বাচল উপশহরের বাপ্পারাজ নামে এক যুকের সিএনজি করে মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করেন। কাউকে মাদকসহ আটক করে প্রথমেই সিএনজিতে উঠান। এ সুযোগে এএসআই হাবিবুরের সহকারী সিএনজি চালক আটককৃতদের কাছ থেকে নগদ টাকা মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত এএসআই হাবিবুর রহমান বলেন, আমার বিরুদ্ধে অভিযোগগুলো সঠিক নয় বলে তিনি দাবী করেন। সুরুজ মিয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি কোন উত্তর না দিয়ে চুপসে যান।

এখানে মন্তব্য করুন

Calendder

আগষ্ট ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« জুলাই    
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  

এখানে বিজ্ঞাপন দিন

এখানে বিজ্ঞাপন দিন

%d bloggers like this: